1. basitpress71@gmail.com : Agrajatrasangbad.com :
  2. THACUURRY@lmaill.xyz : Entaike :
  3. sotresk@kmaill.xyz : Graicle :
  4. calpheadsvire1986@int.pl : ReneeGAT :
  5. soulley@lmaill.xyz : soulley :
  6. syxugjhlvmt@gmail.com : StabroveTere :
  7. starliagitist@softbox.site : starliagitist :
  8. teddylazzarini@icloud.com : Tyronerap :
  9. ppbbakiapSn@poochta.com : WilliamNouri :
শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ০৯:৩০ পূর্বাহ্ন

করোনা মহামারিতে মানবেতর জীবন যৌনকর্মীদের

  • Update Time : সোমবার, ১২ জুলাই, ২০২১
  • ১৫৯ Time View

শম্ভু সাহা, পটুয়াখালীঃ
করোনা মহামারিতে মানবেতর জীবন কাটাচ্ছে পটুয়াখালীর যৌনপল্লীর বাসিন্দারা। অর্থাভাবে শিশু ও বৃদ্ধসহ অনেকটা অনাহারে-অর্ধাহারে দিন কাটছে তাদের। শহরের সদর রোডসংলগ্ন পল্লীটিতে প্রায় দেড়শ যৌনকর্মীর বাস। এদের রোজগারের ওপর নির্ভরশীল পল্লীর প্রায় ৩০০ লোকের ভরণপোষণ। এর মধ্যে রয়েছে ৩৬টি শিশু। পল্লীর ভেতরে ১৬টি চা-পানের দোকান থাকলেও করোনা মহামারিতে এখন সেগুলো বন্ধ।
স্বাভাবিক সময়ে দোকানগুলোতে ছিল জমজমাট বেচাকেনা। ‘নিষিদ্ধ’ এলাকার পরিচয় নিয়েও প্রাণচাঞ্চল্য ছিল এখানে। লকডাউনে একেবারে এখন নীরব এলাকাটি। খাদ্যভাবে প্রাণ ওষ্ঠাগত পল্লীর বাসিন্দাদের। চাইলেও অন্য কোনো কাজ জুটছে এখানকার মানুষগুলোর।
যৌনকর্মী আলেয়া ও চায়না বলেন, ‘আমরা নিজেগো ও খদ্দেরগো সুরক্ষায় লকডাউন মানছি, এহন রোজগারপাতি বন্ধ; কিন্তু প্যাডে তো খিদা আছে। আগের বার কিছু কিছু সাহায্য পাইছেলাম, এহন কেউ কিছু দেয় না। আমাগো সাহায্য-সহযোগিতা না করলে না খাইয়া মরা লাগবে।’ যৌনপল্লীর বাসিন্দাদের অধিকার আদায়ে কাজ করা বেসরকারি সংস্থা ‘শক্তি নারী সংগঠন’-এর সাধারণ সম্পাদক তানিয়া জানান, এই পল্লীতে অনেক শিশু আছে। বড়রা দীর্ঘ সময় ক্ষুধা সহ্য করতে পারলেও শিশুরা তো তা পারে না। মায়ের কাছে যদি টাকা না থাকে তবে খাবার দেবে কে? দেবে কোত্থেকে? মায়েরই তো কোনো রোজগার নেই। তাদের পক্ষে এখন এক কাপ চায়ের পয়সা জোটানো সম্ভব হচ্ছে না। তিনি বলেন, সরকার যদি তাদের দিকে না চায় তাহলে সবাই না খেয়ে মরবে। শক্তি নারী সংগঠনের সভানেত্রী ঝুমুর বেগম বলেন, ‘লকডাউনের কারণে এখন পল্লীতে খদ্দের আসে না। রোজগার বন্ধ হয়ে গেছে। ঘরভাড়া দিতে পারছি না, খাবারের খুব কষ্ট। যৌনকর্মী বলে আমরা কোনো দোকানে গিয়ে এক টাকার জিনিসও বাকিতে পাই না। এই দুঃসময়ে সরকার যদি আমাদের পাশে দাঁড়ায় তবে এখানকার মেয়েরা বাঁচতে পারবে। তা না হলে পেটের দায়ে মেয়েরা রাস্তায় বেড়িয়ে যাবে, তাতে পরিবেশ নষ্ট হবে। সে অবস্থা যাতে তৈরি না হয়, তাই আমরা সরকারের সহযোগিতা চাই।’
এ বিষয়ে পটুখালী জেলা প্রশাসক মো. কামাল হোসেন গণমাধ্যমকে বলেন, প্রকৃত যৌনকর্মীদের তালিকা পেলে অবশ্যই তাদের মানবিক সহায়তা দেওয়া হবেন।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2021 Agrajatrasangbad.com
Desing & Developed BY ThemeNeed.com